আমার সবকিছু আল্লাহর জন্য: এ স্বরণ তাজা করি এ মাসে
হাজ্বী সাহেবান দুনিয়ার সবকিছু থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে এমনকি ইহরামের মাধ্যমে দৈনন্দিন স্বাভাবিক পোশাকও বর্জন করে দুই প্রন্থ সেলাইবিহীন কাপড়ে ‘ লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক- হাজির! বান্দা হাজির!!’ বলে নিজেকে আল্লাহর সমীপে পেশ করে। সফেদ পোশাকে, ধুলোধূসরিত বদনে আল্লাহল ঘরে হাজিরি দেয়। এ হাজিরি শুধু আল্লাহর জন্য। আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য। প্রতিনিয়ত তাদের যবান সতেজ থাকে লাব্বাইক ধ্বনিতে।
তেমনি বিশ্বের বিভিন্ন প্রানেÍ মুসলিম কুরবানী করে। আল্লাহর হুকুমে আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে পশু কুরবানী করে। তখন তারা বলে- আমার সালাত, আমার ইবাদত, আমার জীবন ও আমার মরণ জগৎসমূহের প্রতিপালক আল্লাহর জন্য। আমি এরই জন্য আদিষ্ট হয়েছি। এবং আমি মুসলিমদের একজন
আল্লাহর দেওয়া সম্পদ ব্যয় করে মানুষ আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য পশু কুরবানী করে। আবার সে পশুর গোস্ত আল্লাহ বান্দাকেই দান করেন ভক্ষণ করার জন্য।আর আল্লাহ চান বান্দার তাকওয়া, খালেস নিয়েত ও তাঁর হুকুমের সামনে সমর্পণ।
আল্লাহ তাআলা ইরশাদ করেছেন- আল্লাহর কাছে না পৌঁছে তাদের গোস্ত আর না তাদের রক্ত, বরং তাঁর কাছে তাদের তাকওয়াই পৌঁছে। – সূরা হজ্ব(২২) :৩৭
এ সবকিছুই বান্দাকে স্বরণ করিয়ে দেয়- আমি আল্লাহর জন্য, আমার সবকিছু আল্লাহর জন্য।
সূত্র: মাসিক আলকাউসার জুলাই ২০১৯